Secrets of Personal and Interpersonal Leadership” শীর্ষক কর্মশালা

গত ১৮ এপ্রিল, শনিবার বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতির আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়েছে নেতৃত্বগুণ তৈরি বিষয়ক একটি কর্মশালা। “Secrets of Personal and Interpersonal Leadership” শীর্ষক এই কর্মশালাটি পরিচালনা করেন রবি আজিয়াটা লিমিটেডের ইন্টিগ্রেটেড প্ল্যানিং, ফিন্যান্স এর ভাইস প্রেসিডেন্ট জাভেদ পারভেজ। প্রায় ৩ ঘন্টাব্যাপী এই কর্মশালায় অংশ নেন ৩৫ জন।

মানুষের জীবনে যেকোনো কাজ করতে গেলেই সামনে বাধাবিপত্তি আসে। এই বাধাবিপত্তিগুলি অতিক্রম করা খুব সহজ কাজ নয়। একজন লিডার যিনি, তাঁর মাঝে এই বাধাগুলি অতিক্রম করার মত দক্ষতা আছে। তিনি সমস্যা যেমন চিহ্নিত করতে পারেন, তেমনি ঠিক কোন উপায় অবলম্বন করলে দ্রুত সমস্যাগুলি সমাধান করা যাবে, সেটিও বের করতে পারেন। জাভেদ পারভেজ একজন নেতৃত্বগুণসম্পন্ন ব্যক্তির কাজ করার বিভিন্ন পদ্ধতি অংশগ্রহণকারীদের সামনে তুলে ধরেন। তিনি বলেন, কোন সমস্যা – সেটি যত বড়ই হোক না কেন, সেটি সমাধান করতে গিয়ে নৈতিকতা বিসর্জন দেয়া যাবে না, এমনকি সেটা সামজিক মূল্যবোধের বিরুদ্ধে গেলেও। নৈতিকতা এবং মূল্যবোধ আঁকড়ে ধরে থাকার ব্যাপারটিই একজন সত্যিকার লিডার এবং সাধারণ ব্যক্তির মাঝে পার্থক্য গড়ে দেয়। মূল্যবোধ আঁকড়ে ধরে থেকে কাজ করতে গেলে নানা বাধাবিপত্তি সামনে আসে, আর সেজন্যই একজন মানুষ যদি ভেতরে নেতৃত্বগুণ চর্চা করতে চায়, তাহলে সেটার জন্য ত্যাগ স্বীকার করতে হয়, মূল্য দিতে হয়।

মূল্যবোধ আঁকড়ে ধরে থাকা নিয়ে জাভেদ পারভেজ রেড উড গাছগুলির উদাহরণ টেনে বলেন, এই গাছগুলি ২০০০ বছরেরও বেশি সময় ধরে বেঁচে থাকে, তার কারণ তারা তাদের শেকড় আঁকড়ে ধরে আছে। এই সম্পর্কিত বেশ কিছু ভিডিওও কর্মশালাটিতে দেখানো হয়। কর্মশালাটিতে আরো আলোচনা করা হয়, কীভাবে জীবনে বিভিন্ন প্রলোভন থেকে বেঁচে শেষ পর্যন্ত নিজের লক্ষে পৌঁছাতে হয়, এবং কেন সবার উচিৎ কীভাবে জীবনে সুখী হওয়া যায় – তার উপর ফোকাস করা, চারপাশের বিভিন্ন ধরণের প্রলোভন বাদ দিয়ে। পাশাপাশি ক্যারিয়ার গঠন, দলগতভাবে সমস্যা মোকাবেলা করা, সিদ্ধান্তহীনতা থেকে বের হয়ে আসার উপায়, ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কর্মশালাটিতে আলোচনা করা হয়। প্রত্যেকের জীবনের “গোল” এবং “মিশন” যে দুটো আলাদা জিনিস – সেটি চমৎকারভাবে তুলে ধরেন জাভেদ পারভেজ।

কর্মশালার শেষের দিকে অংশগ্রহণকারীদের লিখতে দেয়া হয় সবার নিজ নিজ জীবনের উদ্দেশ্য – প্রত্যেকে নিজের জন্য কিছু অর্জন করার পাশাপাশি এই সমাজের জন্য, দেশের জন্য, মানুষের জন্য, এই পৃথিবীর জন্য কী কী করতে আগ্রহী, প্রত্যেকের স্বপ্ন কী কী – এসব বিষয় নিয়ে। পাশাপাশি কিছু অ্যাক্টিভিটিতেও প্রত্যেকে অংশ নেয়। নির্দিষ্ট সময় পর পর যে সবার উচিৎ নিজের জীবনের উদ্দেশ্যগুলিকে রিভিউ করা – সেটাও বুঝিয়ে দেয়া হয় সবাইকে।

পুরো কর্মশালায় বেশ কিছু অনুপ্রেরণামূলক ভিডিও দেখানো হয়েছে। একেবারে শেষে ছিল উন্মুক্ত প্রশ্নোত্তর পর্ব। কর্মশালা শেষে সব অংশগ্রহণকারীকে সনদপত্র দেয়া হয়।

Comments

comments

This entry was posted in . Bookmark the permalink.