৪র্থ রাধাগোবিন্দ চন্দ্র স্মারক বক্তৃতা

১২ জুলাই বিকেলে অনুষ্ঠিত হয়েছে ৪র্থ রাধাগোবিন্দচন্দ্র স্মারক বক্তৃতা। “জ্যোতিঃপদার্থবিজ্ঞান: পরিচিতি এবং গবেষণার ক্ষেত্র” শিরোনামে এই জনবিজ্ঞান বক্তৃতায় বক্তব্য রাখেন গবেষক সৈয়দা লামমীম আহাদ। তিনি বর্তমানে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ইরাসমাস মুন্ডুস বৃত্তি নিয়ে জ্যোতিঃপদার্থবিজ্ঞানে মাস্টার্স করছেন। বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতির (এসপিএসবি) আয়োজনে এবং বাংলাদেশ অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটি ও ইউনিভার্স অ্যাওয়্যারনেসের সহযোগিতায় বিকেল ৪টায় বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রে এটি অনুষ্ঠিত হয়।
এস্ট্রোনমি বা জ্যোতির্বিজ্ঞানের একটি শাখা জ্যোতিঃপদার্থবিজ্ঞান। কিন্তু এই শাখাটি কী কী ক্ষেত্র নিয়ে কাজ করে তা অনেকেরই অজানা। মহাবিশ্ব ও এর প্রতিটি বস্তুর উৎপত্তি ও বিবর্তনকে পদার্থবিজ্ঞান দিয়ে বোঝার চেষ্টা করেন জ্যোতিঃপদার্থবিজ্ঞানীরা। সৈয়দা লামমীম আহাদ দর্শকদের সামনে তাঁর বর্তমান কাজের অভিজ্ঞতার আলোকে এসব ব্যাখ্যা করেন। এছাড়াও জ্যোতিঃপদার্থবিজ্ঞানের গবেষণার বিভিন্ন ক্ষেত্র নিয়েও তিনি কথা বলেন। বাংলাদেশ থেকে আরো অনেকে এই ক্ষেত্রে আসবে, কাজ করবে এবং বাংলাদেশ থেকেও রাধাগোবিন্দ চন্দ্রের মতো আরো অনেক সফল জ্যোতির্বিজ্ঞানী তৈরি হবে—এই আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি তাঁর বক্তৃতা শেষ করেন। বক্তৃতাশেষে তিনি দর্শকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটির সভাপতি ড. রেজাউর রহমান। উপমহাদেশের অন্যতম বিখ্যাত জ্যোতির্বিদ রাধাগোবিন্দ চন্দ্রের জীবন এবং জ্যোতির্বিজ্ঞানে তাঁর অসাধারণ কাজের স্মরণে ২০০৯ সাল থেকে বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি এই বক্তৃতাটি আয়োজন করে আসছে।

আয়োজনটি সমন্বয় করেছে এসপিএসবির শারমিন জাহান আঁখি। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা ও রাধাগোবিন্দ চন্দ্রের জীবনী পাঠ করেছে মানবী সরকার সেতু।

Comments

comments

This entry was posted in . Bookmark the permalink.