সামার সায়েন্স ক্যাম্প ২০১৭

স্কুলের গ্রীষ্মের ছুটিতে গত ৭ থেকে ৯ মে অনুষ্ঠিত হয়েছে এসপিএসবি সামার সায়েন্স ক্যাম্প ২০১৭। সারা দেশ থেকে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় ৪৫ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছে এই বিজ্ঞান ক্যাম্পটিতে। ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত এই ক্যাম্পে শিক্ষার্থীরা বৈজ্ঞানিক কার্যপদ্ধতি, বিজ্ঞানে মাপজোখের গুরুত্ব, বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক একক মাপার পদ্ধতি, গ্রাফ-চার্ট তৈরি করা, বৈজ্ঞানিক পোস্টার বানানো এবং উপস্থাপন করা, শিশু-কিশোর বিজ্ঞান কংগ্রেসের প্রস্তুতি -এই বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। করে দেখানো হয়েছে বেশ কিছু এক্সপেরিমেন্ট। ক্যাম্পের ৩য় দিন শিক্ষার্থীরা দলগতভাবে পোস্টার বানিয়ে উপস্থাপন করেছে।

ক্যাম্পের ১ম দিনে শিক্ষার্থীরা একটি গবেষণা কিভাবে করতে হয়, বৈজ্ঞানিক কার্যপদ্ধতি, বিজ্ঞানে মাপজোখের গুরুত্ব,মৌলিক একক পরিমাপ, গ্রাফ ও চার্ট তৈরি করা এবং কিভাবে একটি একটি পোস্টার তৈরি করতে হয় তা শিখেছে। ২য় দিনে শিক্ষার্থীরা ৬টি গ্রুপে ভাগ হয়ে নিজেদের পছন্দমতো বিষয় নিয়ে গবেষণা শুরু করে এবং গবেষণার জন্য প্রয়োজনীয় পরীক্ষা ও তথ্য সংগ্রহ করে। তৃতীয় দিনে শিক্ষার্থীরা তাদের গবেষণার বাকি অংশ শেষ করে এবং বিকেলে পোস্টারের মাধ্যমে তা উপস্থাপন করে। ক্যাম্প শেষে, বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতির সহসভাপতি মুনির হাসান সবার হাতে সনদপত্র তুলে দেন।

গ্রীষ্মের ছুটিতে তিনদিনের এই বিজ্ঞান ক্যাম্প শিক্ষার্থীদেরকে সামনের পথ চলতে অনেক সহায়ক হবে বলে অভিভাবকরা জানিয়েছেন। সবারই অনেক নতুন বন্ধু হয়েছে, মেন্টরদের সাথে পরিচয় হয়েছে। বিদায় বেলায় মন খারাপ হলেও, তিনদিনের চমৎকার অভিজ্ঞতা আর অসংখ্য স্মৃতি সাথে নিয়েই সবাই বাড়ি ফিরে গেছে।

সামার সায়েন্স ক্যাম্পের সমন্বয়কারীর দায়িত্ব পালন করেছে ভুইয়া মোজাম্মেল হক এবং তানভীর আনজুম পাশা। এছাড়া মেন্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছে এসপিএসবি অ্যাকাডেমিক টিমের মোঃ জোনায়েদ হোসেন চৌধুরী নিবিড়, শারমিন জাহান আঁখি, মানবী সরকার সেতু রাজশ্রী, ফারজানা তাবাসসুম সেজুঁতি, ওমর ফারুক, রিচিতা খন্দকার, মো: সাজ্জাদ হোসেন ইমন, এ.টি.এম সামিউল বাসির, তাসনিম আরা সুষ্মী, আমাতুল হায়ী তামান্না, আফরিনা আসাদ মেঘলা, গোলাম মোর্শেদ ,শফিকুল ইসলাম পারভেজ, সায়েফ ফাতিউর রহমান আবির, মিশাল ইসলাম, হাসান নাহিয়ান নোবেল, তানভীর রিভনাত, জুনায়িদুল ইসলাম ও ইবরাহিম মুদ্দাসসের।

This entry was posted in . Bookmark the permalink.