আলোর কথামালা পর্ব ১: আলোর গল্প – আলোর ইতিহাসের অভিযাত্রা

১৩ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা ৬টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি লেকচার থিয়েটারে অনুষ্ঠিত হয়েছে ধারাবাহিক বিজ্ঞান বক্তৃতা আলোর কথামালা (Light Talks) এর প্রথম পর্ব। আলোর গল্প: আলোর ইতিহাসের অভিযাত্রা শিরোনামের এই আয়োজনে কথা বলেছেন ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়, রিভারসাইডের জিওফিজিক্স অ্যান্ড প্ল্যানেটারি ফিজিক্সের গবেষক এবং জ্যোতির্পদার্থবিজ্ঞানী ড. দীপেন ভট্টাচার্য। ড. ভট্টাচার্য বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান বিজ্ঞান সংগঠন অনুসন্ধিৎসু চক্রের একজন প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। তিনি রিভারসাইড কমিউনিটি কলেজে পদার্থবিজ্ঞান ও জ্যোতিপদার্থবিজ্ঞানও পড়িয়ে থাকেন। তিনি একজন সায়েন্স ফিকশন লেখকও।

আন্তর্জাতিক আলোর বছর ২০১৫ উদযাপনের অংশ হিসেবে বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি এই বক্তৃতার আয়োজন করে।

ড. দীপেন ভট্টাচার্য তাঁর বক্তৃতায় আলো এবং আলোক প্রযুক্তির ইতিহাস তুলে ধরেন। ১৪০০ কোটি বছর আগে হওয়া বিগ ব্যাং থেকে যে আলোর কণা ফোটনের যাত্রা শুরু হয়েছে, সেটি আজও ছুটে চলেছে, এবং চলতে থাকবে। আলো নিয়ে গবেষণা শুরু হয়েছে অনেক আগেই, যেসব গবেষক এবং বিজ্ঞানী আলোর এই অভিযাত্রায় উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছেন, যেমন আইজ্যাক নিউটন, জেমস ক্লার্ক ম্যাক্সওয়েল, আলবার্ট আইনস্টাইন, জগদীশ চন্দ্র বসু – তাঁদের উল্লেখযোগ্য অবদান নিয়ে কথা বলেছেন ড. ভট্টাচার্য। শুধু দৃশ্যমান আলোই যে একমাত্র আলো, তা নয়, তার বাইরেও আলো তথা তাড়িতচৌম্বক তরঙ্গের যে বিশাল বর্ণালি রয়েছে, সেটিও তুলে ধরেন তিনি।

বক্তৃতার মাঝেই আলোর পোলারায়নকে নিজের কাছে থাকা পোলারাইজারের মাধ্যমে হাতেকলমে উপস্থিত সবাইকে দেখিয়েছেন ড. দীপেন। শ্রোতারাও দেখেছে মুগ্ধ হয়ে। বক্তৃতার শেষে ছিল প্রশ্নোত্তর পর্ব।

বক্তৃতা শেষে ড. দীপেন ভট্টাচার্যের হাতে শুভেচ্ছা স্মারক তুলে দেন বাংলাদেশ অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটির সভাপতি এ আর খান। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন এসপিএসবির সহ-সভাপতি মুনির হাসান এবং বুয়েটের তড়িৎ কৌশল বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. ফারসীম মান্নান মোহাম্মদী।

Comments

comments

This entry was posted in . Bookmark the permalink.